২১শে অক্টোবর, ২০১৯ ইং | ৬ই কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | রাত ৯:০০

নগরায়ন বনাম কৃষি

বাংলাদেশ কৃষি প্রধান দেশ। নদী বিধৌত এ জনপদ পৃথিবীর বৃহত্তম ব-দ্বীপ। ১লক্ষ ৪৭ হাজার ৫৭০ বর্গকিলোমিটার আয়তনের এই ক্ষুদ্র ভু-খণ্ডে ১৬ কোটি মানুষের বসবাস। ৩ কোটি ৬৫ লক্ষ  একর আয়তনের মধ্যে চাষ যোগ্য জমির পরিমান ১ কোটি ৪৫ লক্ষ অর্থাৎ মোট জমির প্রায় ৪০%। কিন্তু জনসংখ্যা বৃদ্ধির ফলে আবাসন, শিল্পায়নের ফলে কলকারখানা স্থাপনসহ নানা অবকাঠামো নির্মানে ব্যাপকহারে কৃষি জমি ব্যবহৃত হচ্ছে। পাশাপাশি প্রতি বছর নদী গর্ভে বিলীন হচ্ছে শত শত একর আবাদি জমি। ফলে দিন দিন চাষযোগ্য জমির পরিমান হ্রাস পাচ্ছে যা অত্যন্ত উদ্বেকজনক। এই সংকট জনক  অবস্থা থেকে উত্তরনের জন্য প্রয়োজন যুগোপযোগী ভূমি ব্যবস্থাপনা আইন ও তার কঠোর প্রয়োগ। কৃষি সম্প্রসারণের তথ্য মতে, কৃষি হচ্ছে দেশের দ্বিতীয় বড় শিল্প। জিডিপির প্রায় ২৩ শতাংশ আসে এই খাত থেকে। দেশে কৃষি পরিবার রয়েছে ১ কোটি ৫১ লক্ষ ৮৩ হাজার ১৮৩টি।

 সুখের কথা হলো যে,বর্তমান গণতান্ত্রিক সরকার ক্ষমতায় আসার পর ভূমি ব্যবস্থাপনা আইন ও ভূমি প্রশাসন আধূনিকায়নের প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করায় অতীতের যে কোন সময়ের তুলনায় কৃষি জমির যত্রতত্র ব্যবহার অনেকাংশে কমেছে। এখন সময় এসেছে  সীমিত চাষ যোগ্য জমির সদ্ব্যবহার এর মাধ্যমে ক্রমবর্ধিঞ্চু জনসংখ্যার চাপ মোকাবেলা করে খাদ্যে যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা এ সরকারের হাত ধরে  এসেছে তা বজায় রেখে আরো অধিক ফসল উৎপাদনের দিকে এগিয়ে যাওয়া।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*